জীবনের সবচেয়ে হাসির অভিজ্ঞতা

টাকা পাওয়ার পর আবার অডিটোরিয়ামে যাই । সেখানে রোহিত আমার জন্য সিট বুক করে রেখেছিল । পরে টানা দুই ঘন্টা অতিথিদের বক্তৃতা শুনার পর অবশেষে ফলাফল ঘোষণা করা হয় । জানিই কিছু হব না , তাই খুব একটা এক্সসাইটেড ছিলাম না । পরে খাওয়াদাওয়ার পর বিদায়ি সালামি দেওয়ার পালা । এবার বলে ১০০০ টাকা দিবে । তাই লাইনে গিয়ে দাড়ালাম । কিন্তু এই লাইন এতই বড় ছিল , আর লাইনে আগে দাঁড়ানো নিয়ে এত পরিমাণ দুর্নীতি আমরা করছিলাম যে শেষমেশ কিউরেটর বলল অডিটোরিয়ামে টাকা দেওয়া হবে , তাই সবাইকে সেখানে যেতে হবে । গেলাম সেখানে । গিয়েই তো খেলাম ক্রাশ । কালো কালারের একটা টপস পরা , সাথে ব্লু জিন্স। মেয়েটা আবার দেখি আমার আশে পাশেই ঘুর ঘুর করছিল । তবে তার মা তার সাথে থাকার কারনে কিছু বলতেও পারছিলাম না । পরে এক সুযোগে নামটা জিজ্ঞেস করি। বলে, তার নাম নাকি মুগ্ধ , বাড়ি সিরাজগঞ্জ । আহা, কি নাম । নামের সাথে কাজের কি সম্পর্করে বাবা । পরে সেও টাকা নিয়ে চলে যায় , কিন্তু আমার টাকা পাওয়ার পালা আর আসে না । কাচকলার ভাগ্য এতই খারাপ , যে ২০০ জনের মদ্ধে আমিই টাকা পাই সবার শেষে । টাকা নিয়ে বেরিয়ে আসার সময় মনে পড়ে , মুগ্ধ লিখে সার্চ দিলে তো ফেসবুকে হাজার হাজার মানুষের প্রফাইল ভেসে উঠবে । তাহলে তাকে কি করে পাই ? তাই তোমরা যারা এটা পড়ছো তারা একটু শেয়ার দিয়ে দিও, যদি সে কোনো ভাবে পেয়ে যায় ! তো টাকা পাওয়ার পর বাসায় চলে আসি । আসতে আসতে রাত ৮টা বেজে যায় ।
এই তিন দিনের অভিজ্ঞতা ভালো ছিল না খারাপ ছিল সেটা আমি এখনও বুঝতে পারিনি । তবে পকেটে ১৬শ টাকা ভরে দেওয়ায় মেজাজটা ঠিক হয়ে গিয়েছে । একটা জিনিস বুঝতে পেরেছি । আমাদের দেশের কম্পিটিশনে পুরস্কার পাও বা না পাও , স্রিতির অভাব একদমি থাকবে না । ভালো থেক ।

 

Advertisements

Author: Umar SK Pathan

Computer Programmer, Blogger, Advertiser, Activist , Student Journalist

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s